ঘরে মিলল মা-বাবা-ছেলের রক্তাক্ত লাশ, আটক ১

চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলার একটি বাড়ি থেকে মা-বাবা ও তাদের ছেলের রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তিনজনের শরীরেই ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানোর চিহ্ন রয়েছে। এ ঘটনায় নিহত মোহাম্মদ মোস্তফার বড় ছেলে সাদ্দাম হোসেনকে আটক করা হয়। পুলিশের ধারণা, সম্পত্তির বিরোধে এই হত্যাকাণ্ড হতে পারে।

বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) ভোরে জোরারগঞ্জের সোনাপাহাড় এলাকা থেকে মরদেহ তিনটি উদ্ধার করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীটি। মৃতরা হলেন- নতুন বাজারের ব্যবসায়ী সুফি সাহেবের ছেলে মোস্তফা মিয়া (৭০) মোস্তফা মিয়া (৭০), তার স্ত্রী জোসনা আক্তার (৫৫) এবং মোস্তাফার ছেলে আহমদ হোসেন (২৫)।

জোরারগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুর হোসেন মামুন জানান, স্থানীয় মুদি দোকানদার মোস্তাফা, তাঁর স্ত্রী মারজানা বেগম ও মেজ ছেলে আহমেদ হোসেনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। আজ ভোরের দিকে খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে। পারিবারিক কলহের জের ধরে এ ঘটনা ঘটে পারে বলে ধারণা করছে পুলিশ।

ওসি জানান, একই বসতঘরে পরিবারের সবাই শুয়েছিলেন। দুর্বৃত্তরা মোস্তাফা, তাঁর স্ত্রী ও মেজ ছেলে হত্যা করলেও বড় ছেলে ও ছেলেবউ অক্ষত আছেন। বিষয়টি রহস্যজনক। এই সময় রক্তমাখা অবস্থায় নিহত দম্পতির বড় ছেলে সাদ্দাম হোসেনকে আটক করা হয়েছে। তিন জনের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিক‌্যাল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে। তাদের মৃত্যুর কারণ নিয়ে পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে কিছু বলতে পারছে না। কারও সঙ্গে বিরোধের জেরে তাদের হত্যা করা হয়েছে নাকি পারিবারিক দ্বন্দ্বের কারণে এমনটি হয়েছে স্থানীয় লোকজনের কেউও এমন কিছু বলতে পারছেন না।

 

অর্থসূচক/এএইচআর

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •