দুর্নীতির অভিযোগ: অস্ট্রিয়ার চ্যান্সেলরের পদত্যাগ

নিজের পক্ষে ইতিবাচক প্রচারণার জন্য একটি ট্যাবলয়েড দৈনিককে সরকারি কোষাগারের অর্থ দেওয়ার মাধ্যমে দুর্নীতি করেছেন এমন অভিযোগে চাপের মুখে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন অস্ট্রিয়ার চ্যান্সেলর সেবাস্তিয়ান কুর্জ। পদত্যাগের পর চ্যান্সেলর হিসেবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলেকজান্ডার শ্যালেনবার্গের নাম প্রস্তাব করেছেন তিনি।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, সরকারি অর্থ দলীয় রাজনৈতিক কাজে ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছিল কুর্জের নামে। এ ঘটনায় তিনিসহ মোট ১০ জনের নামে তদন্ত চলছে। ইতোমধ্যে চ্যান্সেলরি, অর্থ মন্ত্রণালয় এবং চ্যান্সেলরের সিনিয়র সহকারীদের বাড়ি ও অফিসে অভিযান চালিয়েছে। কুর্জ অবশ্য শুরু থেকেই তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন।

অস্ট্রিয়ার ইকোনমিক অ্যাফেয়ার্স অ্যান্ড করাপশন বিষয়ক প্রসিকিউটর কার্যালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, সেবাস্তিয়ান কুর্জসহ ১০ জন এবং তিনটি সংস্থার নামে ‘বিশ্বাস ভঙ্গ, দুর্নীতি, ঘুষের’ সঙ্গে সংশ্লিষ্ট থাকার অভিযোগে তদন্ত চলছে।

দল এবং নিজের পক্ষে ইতিবাচক জনমত তৈরির লক্ষ্যে ২০১৬ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যকার সময়ে একটি ট্যাবলয়েড পত্রিকাকে অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে তহবিল সরবরাহের অভিযোগ তোলা হয়েছে চ্যান্সেলর এবং আরো নয়জনের বিরুদ্ধে। তবে তদন্ত কাজ শুরু হলেও পত্রিকাটির নাম উল্লেখ করা হয়নি।

২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে দেশটির চ্যান্সেলরের দায়িত্বে ছিলেন সেবাস্তিয়ান কুর্জ। এর আগে ২০১৭ সালে তিনি রক্ষণশীল ওভিপি পিপলস পার্টির চেয়ারম্যান হন এবং ওই বছরের শেষ দিকে নির্বাচনে জয়ী হয়ে বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত সরকার প্রধান হন এই ব্যক্তি।

অর্থসূচক/এএইচআর

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •