‘ই-কমার্সে পণ্যের ছাড়ের হার বেঁধে দেওয়া হবে’

অনলাইন প্ল্যাটফর্ম বিশেষ করে ই-কমার্স থেকে কোনাকাটায় আমাদের আরও সচেতন হতে হবে উল্লেখ করে আইসিটি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, ই-কমার্সে বিভন্ন পণ্যের ছাড়ের হার বেঁধে দেওয়া হবে। তা হতে হবে পণ্যটির বাজার মূল্যের সঙ্গে মিল রেখে বা কাছাকাছি। অতিরিক্ত ছাড় ক্রেতাদের প্রলুব্ধ করছে।

বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাগর-রুনী মিলনায়তনে সংগঠনটির অ্যাপ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে পলক এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, করোনাকালে ই-কমার্সে অনেক প্রবৃদ্ধি হয়েছে। এটা ধরে রাখতে হবে। এ জন্য তিনি বেশি বেশি এসক্রো সার্ভিস ব্যবহারের পরামর্শ দেন।

বিট কয়েন নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে পলক বলেন, বিশ্ব এখন অনেক এগিয়ে গেছে। আমরাও পিছিয়ে থাকতে চাই না। আমরা বিট কয়েন, ক্রিপ্টো কারেন্সি, ডিজিটাল মুদ্রা নিয়ে আলোচনা করতে চাই। একবারে বাদ দিয়ে দিতে চাই না। আলোচনা অন্তত হোক। তাহলে এর ভালো মন্দ-বেরিয়ে আসবে।

আরেক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, অক্টোবর মাসকে আমরা সাইবার সিকিউরিটি মাস ঘোষণা করতে যাচ্ছি। এই আয়োজন আমাদের সাইবার দুনিয়ায় নিরাপদ থাকতে সহায়তা করবে।

আরেকটি প্রশ্নে তিনি জানান, দেশের ৫০ শতাংশ ব্যাংক দেশে তৈরি সফটওয়ার ও নিরাপত্তা ব্যবস্থা ব্যবহার করে।

তিনি আরও জানান, দেশের প্রযুক্তি খাতে নারীর অংশগ্রহণ ১৫ শতাংশের বেশি। ২০৩০ সালের মধ্য সরকার তা ৩০ শতাংশে উন্নীত করতে চায়।

সাংবাদিকদের সংগঠন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সদস্যদের জন্যে উদ্বোধন করেন ডিআরইউ অ্যাপ। এই অ্যাপ ব্যবহারের মাধ্যমে সংগঠনের সদস্যদের বার্ষিক ও কল্যাণ তহবিলের চাঁদা পরিশোধ করা যাবে। অ্যাপে পাওয়া যাবে সংগঠনের সদস্যদের মোবাইল ফোন নম্বর। এছাড়া পাওয়া যাবে অরও কিছু সেবা।

অ্যাপ আপগ্রেড করার জন্য আইসিটি বিভাগ সব ধরনের সহযোগিতা করবে বলে জানান প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, ডিআরইউ’র সঙ্গে আমরা একটি চুক্তি করবো। সাইবার সিকিউরিটি আওয়্যারনেস বাড়াতে সংগঠনটির সাংবাদিকদের সহযোগিতা আমরা নিতে চাই। তারা বিভিন্ন প্রশিক্ষণ ও ওয়ার্কশপ করবে। আগামী ৭ দিনের মধ্যেই এই চুক্তিটি করার লক্ষ্য রয়েছে।

পলক আরও বলেন, ডিআরইউতে আমরা একটি শেখ রাসেল ল্যাব স্থাপন করতে চাই। এর ফলে সংগঠনের সদস্য, সদস্য পরিবারের সন্তান, শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন প্রশিক্ষণ নিতে পারবে। সেখানে বিভিন্ন কোর্স, কারিকুলাম থাকবে। সেটি হবে এডুকেশনাল ল্যাব। এছাড়া ডিআরইউ মিডিয়া সেন্টার বা ল্যাবকে আরও উন্নত করতে আমরা সব ধরনের সহযোগিতা করবো।

ডিআরইউ সভাপতি মুরসালিন নোমানীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সংগঠেনর সাধারণ সম্পাদক মসিউর রহমান খান। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ, সৈয়দ শুক্কুর আলী শুভ, কবির আহমেদ খান প্রমুখ।

অর্থসূচক/এমএস

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •