চলে গেলেন কবি কমলা ভাসিন

উপমহাদেশের নারী আন্দোলনের পুরোধা, লেখক-কবি কমলা ভাসিন মারা গেছেন। শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) ভারতীয় সময় পৌনে ৩টার দিকে তিনি মারা যান বলে জানিয়েছেন তার বাংলাদেশি সহযোদ্ধারা।

নারী আন্দোলন কর্মী শিরিন হক বলেন, বেশ কিছুদিন ধরে কমলা অসুস্থ ছিলেন। সর্বশেষ শুক্রবার পরিস্থিতি খারাপ হলে তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। চিকিৎসকরা জানান, তার ফুসফুসে পানি এসে গিয়েছিল।

কাজের সুবাদে তিনি প্রায় বাংলাদেশে আসতেন এবং বাংলাদেশে নারী আন্দোলনকে সাম্প্রতিক সময়ে সক্রিয় রাখতে তার ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। ২০১৬ সালে নারীর প্রতি সহিংসতাকে বিশ্বের সবচেয়ে বড় যুদ্ধ আখ্যা দিয়ে এই অবস্থার পরিবর্তনে ভয়মুক্ত হয়ে নিজেদের বদলে ফেলার আহ্বান জানান উপমহাদেশের প্রখ্যাত নারী অধিকার নেত্রী কমলা ভাসিন।

নারীবাদী গণআন্দোলন মঞ্চ ‘উদ্যমে উত্তরণে শতকোটি’র উদ্যোগে রোববার রাজধানীর ছায়ানট মিলনায়তনে ‘নারী শোষণের বিরুদ্ধে সংহতি’ শীর্ষক কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এই আহ্বান জানিয়েছিলেন। নারীবাদ নিয়ে তার ভাবনা ও বাস্তবায়ন পদ্ধতি অন্যরকম বলে বিবেচিত হয়ে থাকে।

কমলা ভাসিন ওই বক্তৃতায় বলেন, ‘তোমার-আমার ব্যক্তিগত জীবন না বদলালে পিতৃতন্ত্র চলে যাবে না। সুতরাং আমি নিজের দিকে আঙুল রাখছি, তোমরা নারী-পুরুষ নির্বিশেষে নিজের দিকে আঙুল রাখো।’

উল্লেখ্য, কিঁউকি ম্যায় লডকি হুঁ, মুঝে পঢ়না হ্যায় কবিতার জন্য তিনি সুপরিচিত। ১৯৯৫ সালে তিনি একটি সম্মেলনে জনপ্রিয় কবিতা আজাদীর (স্বাধীনতা) একটি পরিমার্জিত, নারীবাদী সংস্করণ আবৃত্তি করেন। তিনি ওয়ান বিলিয়ন রাইজিংয়ের দক্ষিণ এশিয়ার সমন্বয়কের দায়িত্ব পালন করেছেন।

 

অর্থসূচক/এএইচআর

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •