দুর্গাপূজায় ভারতে যাচ্ছে ২০০০ টন ইলিশ

দুর্গাপূজা উপলক্ষে ভারতে ২০০০ টন ইলিশ রফতানির অনুমোদন দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। তবে প্রকৃত ব্যবসায়ীরা রফতানির অনুমোদন না পাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। ফলে ইলিশ রফতানির লক্ষ্যমাত্রা ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।

আজ সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের রফতানি শাখার উপসচিব তানিয়া ইসলাম রফতানিকারকদের একটি তালিকা প্রকাশ করেছেন।

এ বিষয়ে গণমাধ্যমকে তানিয়া ইসলাম বলেন, দুর্গাপূজা উপলক্ষে ভারতে ২০০০ টন ইলিশ রফতানির অনুমোদন দিয়েছে সরকার। ৫০ জন রফতানিকারণ ৪০ টন করে ইলিশ রফতানির সুযোগ পাবেন। কোনো ব্যবসায়ী অনুমোদিত পরিমাণের চেয়ে বেশি রফতানি করতে পারবেন না।

তবে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ২০২১ সালে ইলিশ রফতানিকারকদের তালিকায় অপরিচিত অনেক প্রতিষ্ঠানের নাম রয়েছে। যদিও ইলিশ রফতানির জন্য রফতানি ট্রফি অর্জন করা বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান আবেদন করলেও তারা অনুমোদন পায়নি।

গত কয়েক বছর ধরে দেশের ব্যবসায়ীদের আবেদনের প্রেক্ষিতে ভারতে ইলিশ মাছ রফতানির অনুমোদন দিয়ে আসছে সরকার। ২০২০ সালেও ১ হাজার ৪৫০ টন ইলিশ রফতানির অনুমোদন দিয়েছিল বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। তবে প্রকৃত ব্যবসায়ী ও রফতানিকারকরা অনুমোদন না পাওয়ায় শেষ পর্যন্ত রফতানির লক্ষ্যমাত্রা অর্জন হয়নি।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে ভারতের ব্যবসায়ীরা একে অপরের সঙ্গে সমন্বয় করে এসব ইলিশ মাছ নিয়ে থাকেন। বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে ভারত সরকারের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো হস্তান্তর হয় না।

চলতি বছরের ১০ অক্টোবরের মধ্যে ৫০ জন ব্যবসায়ী ৪০ টন করে মোট দুই হাজার টন ইলিশ রফতানি করবেন। যশোর জেলার বেনাপোল সীমান্ত দিয়ে পেট্রাপোল হয়ে এসব ইলিশ ভারতে যাবে।

২০১২ সাল থেকে ভারতে ইলিশ রফতানি বন্ধ থাকলেও ২০১৯ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পশ্চিমবঙ্গে ৫০০ টন ইলিশ রফতানির অনুমোদন করেছিলেন। তারই ধারাবাহিকতায় ২০২০ সালে ১ হাজার ৪৫০ টন ইলিশ রফতানির অনুমোদন দিয়েছিল সরকার। চলতি বছর অনুমোদন দিয়েছে ২০০০ টন।

অর্থসূচক/কেএসআর

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •