‘ট্রাক লাগবে’তে বিনিয়োগ করছে আইএফসি

ব্যবসায়িক কাজে, বাসা বদল বা অন্যান্য অনেক ক্ষেত্রেই মালামাল স্থানান্তরের সেক্টরকে আরও উন্নত ও আধুনিকীকরণ করার জন্য ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্স কর্পোরেশনের (আইএফসি) সঙ্গে ‘ট্রাক লাগবে’র চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে।

এছাড়া ‘ট্রাক লাগবে’তে ২.৫ মিলিয়ন ডলার ইক্যুইটি বিনিয়োগ করছে আইএফসি। যা গ্রাহকদের একটি অ্যাপ এবং ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ট্রাক মালিক ও চালকদের সাথে দ্রুত যোগাযোগের ব্যবস্থা করবে। যার মাধ্যমে করোনা মহামারীর সময় ছোট ও মাঝারি আকারের (এসএমই) সেবাগুলোকে টিকিয়ে রাখতে সাহায্য করবে। বিশেষ করে করোনার এই পরিস্থিতে খাদ্য এবং প্রয়োজনীয় সামগ্রী সরবরাহের জন্য এই পরিষেবা সম্প্রসারণ ও দ্রুত সরবরাহ করতে সাহায্য করবে।

ট্রাক লাগবের সেবা আরও আধুনিক এবং সহজ করতে আধুনিক প্রযুক্তি গ্লোবাল পজিশনিং সিস্টেম (জিপিএস) ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে পরিবহনের গতিবিধির ওপর নজর রাখা, পরিবহন ব্যয়ের স্বচ্ছতা ও চালকদের দক্ষতা উন্নয়নে সহায়তা দেওয়া হবে। ট্রাক লাগবে প্ল্যাটফর্মটি এখন দেশের প্রায় সবক’টি জেলায় স্বল্প এবং দূরপাল্লায় পণ্য পরিবহন সেবা দিয়ে থাকে। অনলাইনে আগেভাগেই বুকিং দিয়ে বিভিন্ন সাইজের ট্রাকসেবা নেওয়া যায় এ প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে।

আইএফসি জানায়, বাংলাদেশে পরিবহন সেবার বাজার এখন ১৫ বিলিয়ন ডলার। এই পরিমাণ দেশের মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) ৬ দশমিক ৮ শতাংশের সমান।

এ প্রসঙ্গে ‘ট্রাক লাগবে’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) এনায়েত রশিদ বলেন, আমরা আইএফসিকে অংশীদার হিসেবে পেয়ে খুবই উচ্ছ্বসিত যারা ইতিমধ্যেই অন্যান্য দেশেও অনুরূপ বিনিয়োগ করেছে। এটি আমাদের প্রত্যেকটি জেলায় বিস্তৃত করতে সহায়তা করবে এবং বিভিন্ন সহায়তা পরিষেবা আনার পাশাপাশি প্রত্যেককে খণ্ডিত ও  স্থানীয় বাজার থেকে আমাদের প্রযুক্তি চালিত লজিস্টিক প্ল্যাটফর্মে নিয়ে যেতে সহায়তা করবে।

বাংলাদেশ, ভুটান এবং নেপালের আইএফসির ভারপ্রাপ্ত কান্ট্রি ম্যানেজার নুজহাত আনোয়ার বলেন, এটি বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, যার লক্ষ্য আগামী দশকে একটি মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করে একটি দক্ষ পরিবহন অবকাঠামো এবং সরবরাহ পরিষেবা থাকা। যা মহামারী চলাকালীন পণ্য চালাচলের জন্যও সাহায্য করবে।

ব্যবসায়িক কাজে, বাসা বদল বা অন্যান্য অনেক ক্ষেত্রেই মালামাল স্থানান্তর বা পরিবহনের জন্য প্রায় সময়ই আমাদের প্রয়োজন হয় ট্রাক বা পিকআপ ভ্যানের। কিন্তু প্রয়োজনের সময় অন্য যেকোনো জিনিসের মতোই, হাতের নাগালে এগুলো পাওয়াটাও ভীষণ কষ্টকর হয়ে যায়। এ ছাড়া ট্রাকস্ট্যান্ডে যাওয়া-আসার ঝামেলা, পরিচিত ট্রাক ড্রাইভারদের ফ্রি না পাওয়া ইত্যাদি নানা কারণেও ট্রাক ভাড়া করার এই বিষয়টি পীড়াদায়ক হয়ে দাঁড়ায়। এ ধরনের যাবতীয় সমস্যার সহজ সমাধান দিতে পারে এমন একটি সার্ভিস সম্পর্কে। ট্রাক ভাড়া করা বা ভাড়া দেওয়ার একদমই নতুন ও যুগোপযোগী এই উদ্যোগের নাম ‘ট্রাক লাগবে’।

‘ট্রাক লাগবে’ একটি স্মার্টফোন অ্যাপ্লিকেশন (অ্যাপ)-নির্ভর পণ্য পরিবহন সেবা। ট্রাকমালিক বা ট্রাক এজেন্সির সঙ্গে সেবাগ্রহীতার যোগসূত্র তৈরি করে দেবে ‘ট্রাক লাগবে’ অ্যাপটি। যার মাধ্যমে দেশের যেকোনো স্থান থেকে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় মালামাল স্থানান্তরের জন্য ট্রাক ভাড়া করতে পারবেন ঘরে বসেই। এই অ্যাপটির কাজের ধরন বা সিস্টেম অনেকটা রাইড শেয়ারিং বা পার্সেল অ্যাপগুলোর মতোই। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে অন্যগুলোর চেয়ে এটি একটু আলাদা। অন্যগুলোর মতো এটিতে ট্রাক ড্রাইভার বা চালককে কোনো পার্সেন্টেজ দিতে হয় না। এখানের আয় পুরোটাই ওই ট্রাকচালক বা মালিকের। এতে সাধারণত যখন কোনো প্রেরকের ট্রাকের প্রয়োজন হবে, তখন তিনি অ্যাপের মাধ্যমে তার চাহিদার কথা জানিয়ে দেবেন। এরপর সেই চাহিদার বিবরণ পৌঁছে যাবে আশপাশের ট্রাকমালিকদের কাছে। এরপর আগ্রহী ট্রাকমালিক বা চালকরা তাদের কাক্সিক্ষত ভাড়ার কথা জানাবেন। সব ঠিকঠাক হলে পণ্য প্রেরক সেই অ্যাপ দিয়েই ভাড়া করে নিতে পারবেন ট্রাক। যেখানে ২০ হাজারেরও বেশি নিবন্ধিত ট্রাক রয়েছে।

উল্লেখ্য, ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্স কর্পোরেশন (আইএফসি) হল একটি আন্তর্জাতিক আর্থিক প্রতিষ্ঠান যা উন্নয়নশীল দেশসমূহকে বেসরকারি পর্যায়ে উন্নয়ন ও সম্পদ ব্যবস্থাপনায় বিনিয়োগ ও পরামর্শ প্রদান করে থাকে। আইএফসি বিশ্বব্যাংক গ্রুপের একটি প্রতিষ্ঠান এবং এর সদর দফতর যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত। উন্নয়নশীল দেশসমূহতে শুধুমাত্র ব্যক্তিখাতের উন্নয়ন ও লাভজক প্রতিষ্ঠানগুলোতে বিনিয়োগ ও উন্নয়নের জন্য ১৯৫৬ সালে বিশ্বব্যাংকের একটি শাখা হিসেবে এটিকে প্রতিষ্ঠিত করা হয়। দারিদ্র বিমোচন, অণুন্নত ও উন্নয়নশীল দেশের সরকারের অর্থনীতির উপর থেকে চাপ কমিয়ে ব্যক্তিখাতে জনসাধারণের জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টি, দেশের বিদ্যমান সম্পদসমূহকে কাজে লাগিয়ে প্রাইভেট এন্টারপ্রাইজসমূহকে শক্তিশালী করা এবং ব্যক্তিপর্যায়ে ব্যবসার সম্প্রসারণই হল ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্স কর্পোরেশনের অন্যতম লক্ষ্য।

 

অর্থসূচক/এএইচআর