বান্দরবানে পাহাড় ধসের ঘটনায় ভাইবোনের মরদেহ উদ্ধার, মা নিখোঁজ

বান্দরবান সদরের সাইঙ্গ্যা ত্রিপুরা পাড়া থেকে পাহাড়ের মাটি ধসে পড়ে নিখোঁজ একই পরিবারের তিন সদস্যর মধ্যে দুজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে স্থানীয়রা।

এ দুজন হলেন- বাজেরুং ত্রিপুরা (১২) এবং অপরজন প্রদীপ ত্রিপুরা (৭)। তারা সম্পর্কে ভাইবোন। তবে এখনো নিখোঁজ আছেন মা কৃষ্ণাতি ত্রিপুরা (৪৪)। ওই ঘটনায় আহত হন কৃষ্ণাতির ছোট বোন রাংকাতি ত্রিপুরা।

আজ বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বাজেরুঙ ত্রিপুরা ও বেলা ১১টার দিকে প্রদীপ ত্রিপুরার লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিখোঁজ কৃষ্ণতী ত্রিপুরা সদর উপজেলার সদর ইউনিয়নের সাংঙ্গাই ত্রিপুরাপাড়া এলাকার মৃত দিয়াম্ব ত্রিপুরার স্ত্রী।

মিলনছড়ি পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আব্দুল কাদের জিলানী জানান, ঝিরির বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজির সময় ঘটনাস্থল থেকে কিছুটা দূরে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বাজেরুঙ ত্রিপুরার লাশ এবং বেলা ১১টার দিকে তার ভাই প্রদীপ ত্রিপুরার লাশ উদ্ধার করেন উদ্ধারকর্মীরা। তাদের মা নিখোঁজ কৃষ্ণতী ত্রিপুরার সন্ধানে এখনও উদ্ধার অভিযান চলছে।

৩নং সদর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য জগদীশ ত্রিপুরা জানিয়েছেন, গতকাল বিকেল থেকে ভারী বর্ষণ হচ্ছিল। জুমের কাজ শেষে বিকেলে মা, মেয়ে ও ছেলে ঝিরির পাশে থাকা পানির ট্যাংক থেকে গোসল করছিলেন।

গোসল শেষে ঝিরিতে প্রবল স্রোত থাকায় পার হয়ে বাড়িতে যেতে পারছিলেন না। পানির স্রোত থেকে রক্ষা পেতে তারা ঘাটের পানির ট্যাংকের পাশে দাঁড়ান। এ সময় হঠাৎ ট্যাংকের ওপর পাহাড় ধসে তিনজনই নিখোঁজ হন।

রাংকাতি ত্রিপুরা ট্যাংক থেকে ছিটকে পড়ে প্রাণে বেঁচে গেলেও আহত হয়েছেন। সাইঙ্গ্যা ত্রিপুরা পাড়াটি বান্দরবান-চিম্বুক সড়কে জেলা শহর থেকে পাঁচ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।

রাতেই রেডক্রিসেন্টের সদস্য, ফায়ার সার্ভিসের কর্মী ও স্থানীয়রা নিখোঁজদের উদ্ধারে ঝিরির আশপাশে খোঁজ শুরু করেন। আজ সকালে স্থানীয়রা ঝিড়ির কাছ থেকে শিশু বাজেরুং ত্রিপুরার মরদেহ খুঁজে পান। আরেক শিশু প্রদীপ ত্রিপুরার মরদেহ খুঁজে পান সাঙ্গু নদীর মোহনায়।

বান্দরবান সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সোহাগ রানা জানিয়েছেন, ভাইবোনের লাশ পাওয়া গেছে। উদ্ধার তৎপরতা এখনো অব্যাহত আছে।

অর্থসূচক/কেএসআর