মধ্যরাতে কোহলির ই-মেইলের পর বাতিল হয়েছিল ম্যানচেস্টার টেস্ট!

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কারণে ভারতের ক্রিকেটাররা খেলতে অস্বীকৃতি জানালে শেষ পর্যন্ত বন্ধ হয়ে যায় ইংল্যান্ড-ভারতের মধ্যকার ম্যানচেস্টার টেস্ট। মূলত ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) অংশ নিতেই ভারতের ক্রিকেটাররা এই টেস্ট খেলতে চায়নি বলে অভিযোগ তোলেন অনেকে।

এবার ডেভিড গাওয়ার মন্তব্য করলেন, বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়াকে (বিসিসিআই) পাঠানো বিরাট কোহলির এক ই-মেইল বার্তার পরই পাল্টে যায় ম্যাচের ভাগ্য। ম্যাচের আগের দিন মধ্যরাতে বিসিসিআইকে কোহলি একটি ই-মেইল পাঠিয়েছিলেন বলে দাবি করেছেন সাবেক এই ইংলিশ অধিনায়ক। এরপর বিষয়টি ইংল্যান্ডকে কিছুটা অস্বস্তিকর পরিস্থিতিতে ফেলে দেয় বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। শেষ পর্যন্ত বিসিসিআইয়ের অনুরোধে সিরিজের শেষ টেস্ট বাতিল করতে বাধ্য হয় ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)।

এ প্রসঙ্গে গাওয়ার বলেন, ‘বিষয়টি অভিনব কায়দায় আমাদের ভিন্ন পরিস্থিতিতে ফেলে দেয়। এর মানে আমি জানি অন্যান্য ম্যাচও পরিত্যক্ত হয়েছে। অন্যান্য পরিস্থিতিতে মাঝে মাঝে কিছু বল মাঠে গড়ায় এবং শেষ মুহূর্তে খেলাটি বন্ধ হয়ে যায়। তার আগের দিন (ম্যানচেস্টার টেস্টের আগের দিন) মধ্যরাতে বিরাট কোহলি বিসিসিআইকে ই-মেইল করেছিল। পুরো ঘটনাটি আসলে ভালোভাবে ব্যাখ্যা করা প্রয়োজন।’

এই টেস্টটি বাতিল হয়ে যাওয়ার পেছনের কারণ হিসেবে আরো কিছু গোপন তথ্য বেরিয়ে আসবে বলে উল্লেখ করে গাওয়ার বলেন, ‘আগামী সপ্তাহে আরো অনেক কিছু বেরিয়ে আসবে। আমরা এখন পর্যন্ত শুনিনি এমন একটি বা দুটি বিষয় জনসাধারণের কানে আসতে পারে। মনে হচ্ছে, ভারতীয় খেলোয়াড়রা তাড়াহুড়ো করে শহরের বাইরে চলে গেছে। ইতোমধ্যে তারা সংযুক্ত আরব আমিরাতে আইপিএলের প্রস্তুতি নিচ্ছে।’

ম্যানচেস্টার টেস্টের আগে ভারত ও বোর্ডের মধ্যে গোপন আলাপ হয়েছিল উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, ‘আপনি হয়তো যুক্তি দিতে পারেন যে পরিস্থিতি অনুযায়ী এটি (ভারতের না খেলা) বুদ্ধিমানের কাজ। এটি তাদের অংশ (আইপিএল) নেওয়ার সেরা সুযোগ করে দেয়। সম্ভবত বিষয়টি ইঙ্গিত দেয় যে আইপিএল এবং ম্যাচ বাতিলের মধ্যে সম্পর্ক ছিল। ভারতীয় দল এবং ভারতীয় বোর্ডের মধ্যে কিছু ব্যক্তিগত কথোপথন হয়েছিল।’

অর্থসূচক/এএইচআর

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •