প্রথম বছরে ৫ শতাংশ শেয়ার ছাড়তে চান ওয়ালটনের মালিকরা

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডসহ ৩টি কোম্পানিকে বাজারে আরও শেয়ার বিক্রি করে ফ্রি ফ্লোটিং শেয়ারের সংখ্যা পরিশোধিত মূলধনের ন্যুনতম ১০ শতাংশে উন্নীত করার নির্দেশ দিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) কোম্পানি তিনটির কাছে চিঠি পাঠিয়ে এই নির্দেশ দেওয়া হয়।

কমিশনের নির্দেশনা অনুসারেগত বছর পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজের ফ্রি ফ্লোট শেয়ার মাত্র দশমিক ৯৭ শতাংশ। ১০ শতাংশের বাধ্যবাধকতা পূরণ করতে হলে কোম্পানিটিকে আরো ৯ দশমিক শূন্য ৩ শতাংশ শেয়ার ছাড়তে হবে।

বিএসইসির নির্দেশনার প্রেক্ষিতে ওয়ালটনের পক্ষ থেকে এই শেয়ার বিক্রি করার জন্য কমপক্ষে ২ বছর সময় দেওয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছে বিএসইসির কাছে। আর প্রথম বছরে তারা সর্বোচ্চ ৫ শতাংশ পর্যন্ত শেয়ার বিক্রি করতে চয়। 

বাজারে কোম্পানি তিনটির শেয়ারের সরবরাহ বাড়ানোর লক্ষ্যে আরও শেয়ার বিক্রির নির্দেশ দেওয়া হয় বলে দাবি করেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

নির্দেশনা অনুসারে, কোম্পানির উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের ধারণকৃত শেয়ার থেকে শেয়ার বিক্রি করে ফ্রি ফ্লোট শেয়ারের সংখ্যা বাড়াতে হবে। বিতর্কিত সরাসরি তালিকাভুক্তি পদ্ধতির (Direct Listing Method) মতো করে বিক্রি হবে এই শেয়ার। আগামী এক বছরের মধ্যে শেয়ার বিক্রির এই লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করতে। তবে কোনো মাসেই ১ শতাংশের বেশি শেয়ার বিক্রি করা যাবে না।

উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের শেয়ার বিক্রির নির্দেশনাকে কেন্দ্র করে বাজারে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, যেহেতু উদ্যোক্তা ও পরিচালকরা তাদের কাছে থাকা শেয়ার বিক্রি করবেন বলে, শেয়ার বিক্রির টাকাও তাদের পকেটে যাবে। এই টাকার কোনো অংশ কোম্পানির তহবিলে আসবে না। এতে কোম্পানির এবং বিনিয়োগকারীদের কোনো লাভ হবে না। উল্টো শেয়ার সরবরাহ বেড়ে যাওয়ার কারণে বাজারে শেয়ারের দর পতন হবে। বিনিয়োগকারীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।

বিএসইসির ওই নির্দেশনার তীব্র প্রভাব পড়েছে বাজারে। সোমবার বাজারে ওয়ালটনসহ তিনটি কোম্পানির শেয়ারের দরপতন হয়। এর মধ্যে ওয়ালটনের শেয়ার এক পর্যায়ে ক্রেতা-শুন্য হয়ে পড়ে। মঙ্গলবারও কোম্পানিটি শেয়ারের দর হারায়। বিষয়টি ওয়ালটনের ব্র্যান্ড ইমেজে তীব্র প্রভাব ফেলতে পারে এমন আশংকায় কোম্পানির ব্যাবস্থাপনা পরিচালক গোলাম মুর্শিদ ছুটে যান বিএসইসিতে। বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলি রুবাইয়াত-উল ইসলামের সাথে দেখা করে আলোচিত শেয়ার বিক্রি করার জন্য কমপক্ষে ২ বছর সময় দেওয়ার অনুরোধ জানান। বিএসইসির চেয়ারম্যান এ বিষয়ে চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত না দিয়ে ওয়ালটনকে লিখিতভাবে এই অনুরোধ জানানোর পরামর্শ দেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •