স্বামীর ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ বন্ধ চেয়ে বসকে চিঠি স্ত্রীর

মহামারি করোনার ধাক্কায় পর্যুদস্ত গোটা বিশ্ব। যদিও বর্তমানে অনেকটাই স্বাভাবিকের পথে সব কিছু। তবে গত বছরের মার্চ-এপ্রিলের কথা ভাবুন তো, গোটা পৃথিবীটাই যেন এক ঘরে বন্দি হয়ে গিয়েছিল। হালফিলের ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোমে’র চক্করে বাড়িই হয়ে গিয়েছিল অফিস। আর তাকে ঘিরেই যত কাণ্ড।

বাড়ি বসে স্বামী আর কয়েকদিন কাজ করলে বিবাহবিচ্ছেদ হবে বলেই মনে করছেন এক নারী। সেকথা উল্লেখ করে স্বামীর অফিসের বসকে চিঠিও লিখেছেন। যা ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। চিঠির বয়ান নজর কেড়েছে নেটিজেনদের।

ওই নারীর স্বামী এবং দুই সন্তান নিয়ে সংসার। করোনা সংক্রমণের আতঙ্কে পরিচারিকার বাড়িতে আসা বন্ধ করেছেন। স্বামী বেসরকারি সংস্থায় কর্মরত। বাড়িতেই একটি ঘরে বসে অফিসের কাজ সারেন। এ পর্যন্ত ঠিকই ছিল। কিন্তু স্বামীকে নিয়েই অতিষ্ঠ ওই নারী। তার দাবি, ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোমে’র মাঝে ১০ বার কফি চান স্বামী। সঙ্গে ভালমন্দ খাবারের আবদার তো লেগেই রয়েছে। যে ঘরে বসে কাজ করেন সেটিও অগোছালো করে রাখেন। শুধু তাই নয় কাজের সময়ে নাকি স্বামীকে ঘুমোতেও দেখেছেন।

ওই নারীর আরও দাবি, দুই সন্তান এবং সংসারের যাবতীয় কাজ সামলাতে হয় তাকে একাই। তারপর স্বামীর খাবার আর কফির দাবি মেটাতে গিয়ে দিশাহারা তিনি। এভাবে চলতে থাকলে সংসার ভেঙে যাবে বলেও মনে করছেন তিনি। তাই স্বামীর বসকে চিঠিই লিখে ফেলেন। স্বামীর ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোমে’র জেরে কতটা সমস্যায় পড়েছেন, তা উল্লেখ করেন চিঠিতে। তার একটাই আরজি, এবার স্বামীকে কাজের জন্য অফিসে ডেকে নেওয়া হোক। স্বামীর করোনা ভ্যাকসিনের দু’টি ডোজই নেওয়া হয়ে গিয়েছে বলেও চিঠিতে জানান ওই নারী।

এই চিঠি ভাইরাল হতে বিশেষ সময় লাগেনি। চিঠিটি হর্ষ গোয়েঙ্কা শেয়ার করেছেন। যা ঝড়ের গতিতে ছড়িয়ে পড়েছে। তবে ওই নারীর দাবি স্বামীর বস মেটালেন কিনা, তা জানা যায়নি।

অর্থসূচক/কেএসআর

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •