স্বাস্থ্যের সেই মালেকের মামলার রায় ২০ সেপ্টেম্বর

স্বাস্থ্য অধিদফতরের বরখাস্ত গাড়িচালক আবদুল মালেকের বিরুদ্ধে করা অস্ত্র মামলায় রায় ঘোষণার জন্য আগামী ২০ সেপ্টেম্বর তারিখ ঠিক করেছেন আদালত।

আজ সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) ঢাকার অতিরিক্ত তৃতীয় মহানগর দায়রা জজ আদালতে বিচারক রবিউল আলম রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে রায় ঘোষণার জন্য এ দিন ধার্য করেন।

আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) সালাহউদ্দিন হাওলাদার এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, এই মামলায় আজ রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক শুনানি শেষ হয়েছে। আদালত রায়ের জন্য ২০ সেপ্টেম্বর তারিখ রেখেছেন।

এই মামলায় ৬ সেপ্টেম্বর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়। মামলায় ১৩ জন সাক্ষীর সবাই আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন।

গত বছরের ২০ সেপ্টেম্বর রাজধানীর তুরাগ এলাকা থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন, পাঁচটি গুলি, জাল টাকাসহ র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার হন মালেক। তার বিরুদ্ধে তুরাগ থানায় অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইন ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা হয়।

অস্ত্র মামলায় মালেকের বিরুদ্ধে গত জানুয়ারিতে আদালতে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। আদালত অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে গত ১১ মার্চ অভিযোগ গঠন করেন।

অষ্টম শ্রেণি পাস মালেক ১৯৮২ সালে প্রথম সাভার স্বাস্থ্য প্রকল্পের গাড়িচালক হিসেবে যোগ দেন। বছর চারেক পর তিনি অধিদফতরের পরিবহন পুলে যোগ দেন। গ্রেফতারের আগপর্যন্ত তিনি প্রেষণে স্বাস্থ্যশিক্ষা অধিদফতরের পরিবহন পুলের গাড়িচালক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

মালেককে গ্রেফতারের পর র‌্যাব জানায়, তার স্ত্রী দুজন। প্রথম স্ত্রী নার্গিস আক্তারের নামে তুরাগ এলাকার দক্ষিণ বামনারপাড়া রমজান মার্কেটের উত্তর পাশে ছয় কাঠা জায়গার ওপর সাততলার দুটি আবাসিক ভবন আছে। এতে ফ্ল্যাট আছে ২৪টি। ওই ভবনের সামনে আছে ১০ থেকে ১২ কাঠার আরেকটি প্লট। ভবনের তৃতীয় তলায় তিনি সপরিবার থাকতেন। বাকি ফ্ল্যাটগুলো ভাড়া দেওয়া। বড় মেয়ে বেবির নামে দক্ষিণ কামারপাড়ায় ১৫ কাঠা জায়গার ওপর ইমন ডেইরি ফার্ম নামের গরুর খামার আছে। এর বাইরে হাতিরপুলে পৈতৃক সূত্রে পাওয়া সাড়ে চার কাঠা জায়গার ওপর ১০ তলা ভবন নির্মাণাধীন।

অর্থসূচক/কেএসআর

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •