নবীকে অধিনায়ক করে আফগানিস্তানের বিশ্বকাপ দল ঘোষণা

একেতে হঠাৎ করেই সরকারের পতন হয়ে তালেবানের ক্ষমতা দখল, তারওপর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দল ঘোষণার পর পরই অভিমানে নেতৃত্ব ছেড়ে দেন আফগান লেগস্পিনার রশিদ খান। ফলে এখন অনেকটা অস্থির সময় পার করছে আফগানিস্তান ক্রিকেট।

রশিদ খানের এই আচমকা সিদ্ধান্তে বিশ্বকাপের আগে বেশ বড় একটা সংকটেই পড়ে গেছে আফগান ক্রিকেট। তবে সেই সংকট আপাতত সামাল দিতে অধিনায়কত্বের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার মোহাম্মদ নবীকে।

আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (এসিবি) বৃহস্পতিবার (০৯ সেপ্টেম্বর) রাতে বিশ্বকাপের দল ঘোষণা করে। এর কিছুক্ষণ পর দল নির্বাচনের প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন তোলেন রশিদ খান।

রশিদ খানের মতে, দলে হুট করে ঢুকে পড়েছেন কয়েকজন সিনিয়র ক্রিকেটার। দীর্ঘদিন দলের বাইরে থাকা এই সিনিয়ররাও ফিট নন। তাদের শৃঙ্খলাও ভালো নয়।

ক্রিকবাজের খবর, আফগানিস্তানের বিশ্বকাপ দলে জায়গা পেয়েছেন মোহাম্মদ শাহজাদ, যিনি শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ ছিলেন। আরও সুযোগ পেয়েছেন অভিজ্ঞ তিন পেসার হামিদ হাসান, শাপুর জাদরান ও দৌলত জাদরান, যারা গত দু-তিন বছর ধরে ক্রিকেটে ছিলেন না।

এমন স্কোয়াড দেখে বিস্মিত রশিদ খান। এদিকে মোহাম্মদ নবীকে নতুন অধিনায়ক ঘোষণার পরও অস্থিরতা কাটছে না। কারণ রশিদ খানের ঘনিষ্ঠ সতীর্থদের মধ্যে মোহাম্মদ নবী অন্যতম। তা ছাড়া বিগত সময়ে প্রকাশ্যে আফগান বোর্ডের সমালোচনা করেছেন নবী। সেই ক্রিকেটারের হাতে দলের নেতৃত্ব ছেড়ে দেওয়া ঠিক হচ্ছে কিনা বা পরে তিনি বেঁকে বসবেন কিনা তা নিয়ে সংশয় কাটছে না।

একনজরে আফগান দলের বিশ্বকাপ স্কোয়াড—
রশিদ খান, রহমানউল্লাহ গুরবাজ, হজরতউল্লাহ জাজাই, উসমান গনি, আসগর আফগান, মোহাম্মদ নবী (অধিনায়ক), নাজিবউল্লাহ জাদরান, হাশমতউল্লাহ শহিদি, মোহাম্মদ শাহজাদ, মুজিব-উর রহমান, করিম জানাত, গুলবাদিন নাইব, নাভিন-উল হক, হামিদ হাসান, শরাফউদ্দিন আশরাফ, দৌলত জাদরান, শাপুর জাদরান, কাইস আহমেদ।

স্ট্যান্ডবাই: আফসার জাজাই, ফরিদ আহমাদ মালিক।

অর্থসূচক/কেএসআর