৪০ পিইসম্পন্ন কোম্পানিতে মার্জিন ঋণ, খতিয়ে দেখতে ডিএসইকে নির্দেশ

পুঁজিবাজারে স্বল্পমুলধনী কোম্পানির অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধির পেছনে বিধিবহির্ভূত মার্জিন ঋণের ভূমিকা আছে বলে অভিযোগ উঠেছে। আইন অনুসারে, কোনো কোম্পানির শেয়ারের মূল্য-আয় অনুপাত (পিই রেশিও) ৪০ বা তার বেশী হলে ওই শেয়ার কেনার জন্য গ্রাহকদেরকে ঋণ দেওয়া নিষেধ। কিন্তু কোনো কোনো ব্রোকারহাউজ ও মার্চেন্ট ব্যাংক তাদের পছন্দের গ্রাহকদেরকে এই ঋণ সুবিধা দিচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে।
আলোচিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নিতে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) কে নির্দেশ দিয়েছে।
বিএসইসি সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।
আজ বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) বিএসইসি ডিএসইকে এই চিঠি পাঠিয়েছে বলে জানা গেছে।
এ বিষয়ে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম বলেন, স্বল্প মূলধনী কোম্পানিগুলোর বড় অংশই দূর্বল মৌলভিত্তির। তারপরও এসব কোম্পানির শেয়ারের দাম বেড়েই চলেছে। এই মূল্যবৃদ্ধির পেছনে অস্বাভাবিক কিছু আছে কি-না তা খতিয়ে দেখতে বলা হয়েছে ডিএসইকে। এছাড়া এসব কোম্পানির শেয়ারে মার্জিন ঋণ দেওয়া হচ্ছে কি-না সেটিও খতিয়ে দেখতে বলা হয়েছে।