দালালদের দৌরাত্ম্য বন্ধে সারা দেশে র‌্যাবের অভিযান

চট্টগ্রামের পাঁচলাইশে অবস্থিত আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের বাইরে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা (সিসি) বসিয়ে প্রশাসনের কর্মকর্তা ও গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের মনিটরিং করছে দালালরা। গণমাধ্যমে এমন সংবাদ প্রকাশের পর সারাদেশে বিআরটিএ, পাসপোর্ট অফিস ও সরকারি হাসপাতালগুলোতে একযোগে অভিযান শুরু করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

আজ রোববার (০৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব সদরদফতরের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন।

তিনি জানান, আজ সকাল থেকে সারাদেশে অভিযান শুরু হয়েছে। র‌্যাবের ১৫টি ব্যাটালিয়ন একযোগে অভিযানে নেমেছে। পাসপোর্ট অফিস, বিআরটিএ কার্যালয় ও সরকারি হাসপাতালসহ যেখানেই দালালদের দৌরাত্ম্য সেখানেই অভিযান পরিচালনা করছে র‌্যাব। অভিযানে র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হচ্ছে।

ইতোমধ্যে ঢাকার কেরানীগঞ্জে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) ও পাসপোর্ট অফিসে দালালদের বিরুদ্ধে একযোগে অভিযান পরিচালনা করে ৫১ জনকে আটক করেছে র‌্যাব।

রোববার (০৫ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বিআরটিএ ও পাসপোর্ট কর্তৃপক্ষের সহযোগিতায় একযোগে অভিযান শুরু করে র‌্যাব-১০ এর পৃথক দল।

এদিকে, রোববার সকাল থেকে র‌্যাব-৩-এর সহযোগিতায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে দালালদের বিরুদ্ধে অভিযানের নেতৃত্ব দিচ্ছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু।

তিনি বলেন, ঢামেকে দালালদের দৌরাত্ম্য বন্ধে নিয়মিত অভিযানের অংশ হিসেবে আজ সকাল থেকে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত অন্তত ৩০ দালালকে আটক করা হয়েছে। অভিযান শেষে বিস্তারিত জানানো হবে।

এছাড়াও, রাজধানীর কেরাণীগঞ্জে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) কার্যালয় ও পাসপোর্ট অফিসে দালালদের বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছেন র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। অভিযানে বিআরটিএ অফিস থেকে এখন পর্যন্ত ৩৬ ও পাসপোর্ট অফিস থেকে ১৬ দালালকে আটক করা হয়েছে। এ অভিযানে রোববার র‌্যাব-১০-এর সহযোগিতায় বিআরটিএতে অভিযানের নেতৃত্ব দিচ্ছেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাজহারুল ইসলাম ও পাসপোর্ট অফিসে অভিযানের নেতৃত্ব দিচ্ছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আয়েশা আক্তার।

অন্যদিকে আগারগাঁও পাসপোর্ট অফিস এলাকায় রোববার সকাল থেকে অভিযানে নেমেছে র‌্যাব-২ এর একটি দল। সেখানে দালাল চক্রের বিরুদ্ধে র‌্যাব-২ এর ভ্রাম্যমাণ আদালত চলমান রয়েছে।

র‌্যাব-২ এর সহকারী পরিচালক এএসপি ফজলুল হক জানান, র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হচ্ছে। প্রাথমিক তথ্যানুযায়ী এ পর্যন্ত ১৫ জনকে আটক করা হয়েছে। তাদের তথ্য যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কার্যালয়েও দালাল ধরতে অভিযান চালানো হয়েছে। অভিযানে দালাল ও প্রতারক চক্রের ৩০ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-৭। দুপুরে নতুনপাড়া বিআরটিএ কার্যালয় এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

অর্থসূচক/কেএসআর

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •