সাউথইস্ট ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান পুনঃনির্বাচিত

সাউথইস্ট ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের সভায় আলমগীর কবির চেয়ারম্যান এবং মিসেস দুলুমা আহমেদ ভাইস-চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত পরিচালনা পর্ষদের ৬৩৬তম বোর্ড সভায় পরিচালকদের সর্বসম্মতিক্রমে তাদেরকে পুন:নির্বাচিত করা হয়।

১৯৪৭ সালের ২৮ ডিসেম্বর জন্মগ্রহণ করেন আলমগীর কবির, এফসিএ। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বি.কম (অনার্স) এবং পাঞ্জাব বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এম.কম ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি একজন পেশাদার চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট। দেশ ও বিদেশের বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠান, হিসাব নিরীক্ষা, অ্যাকাউন্টিং, ব্যাংকিং, বীমার সম্পর্কে তার গভীরতম জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা রয়েছে।

২০০৪ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করে আসছেন আলমগীর কবির। তিনি ব্যাংকের সকল সাবসিডিয়ারি প্রতিষ্ঠানেরও চেয়ারম্যান। এছাড়া ন্যাশনাল লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের অনারারি উপদেষ্টা।

১৯৬৯ সালে কেপিএমজির মেম্বার ফার্ম রহমান রহমান হক অ্যান্ড কোং, চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টস-এ কর্মজীবন শুরু করেন আলমগীর কবির। এরপর তিনি রহমান রহমান হকের সহযোগী প্রতিষ্ঠান ইডব্লিউপি অ্যাসোসিয়েটসে ম্যানেজম্যান্ট কনসালটেন্ট হিসেবে ১৯৭৯ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭২ সালে তিনি বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রথম বিধিবদ্ধ নিরীক্ষক হিসেবে অডিট অব অ্যাকাউন্টসের অডিট ইনচার্জ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ১৯৭৯ সালে সৌদি আরবের রিয়াদ শহরে সৌদি অ্যাকাউন্টিং ব্যুরো, চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টসের হয়ে দ্বায়িত্ব পালন করেন যেটি কুপার্স অ্যান্ড লাইব্র্যান্ড, মুরস রোল্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল এবং ইনবুকন ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের মেম্বার ফার্ম। সেখানে তিনি ১৯৭৯ থেকে ১৯৯৩ সাল পর্যন্ত ম্যানেজমেন্ট কনসালটেন্ট হিসেবে গুরু দায়িত্ব পালন করেন।

এরপর দেশে ফিরে এসে তিনি ১৯৯৩ থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসিতে ) সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও তিনি বিএসইসি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্বও পালন করেন। বিএসইসিতে থাকার সময় তিনি বাংলাদেশের পুঁজিবাজারের উন্নয়নে উল্ল্যেখযোগ্য অবদান রাখেন। ১৯৯৬ সাল থেকে তিনি ব্যাংক, নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠান, বীমা এবং পুঁজিবাজার সম্পর্কিত প্রতিষ্ঠানের গঠন ও উন্নয়নে কাজ করেছেন।

১৯৯৯ সাল থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত এক্সপোর্ট ইমপোর্ট ব্যাংক অব বাংলাদেশ লিমিটেডের প্রতিষ্ঠাতা উপদেষ্টা ছিলেন কবির। যার প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ছিলেন তার ভাই মরহুম শাহজাহান কবির। দুই ভাইয়ের যৌথ প্রয়াসে এক্সিম ব্যাংক গঠন ও দ্রুত প্রবৃদ্ধিতে অবদান রাখেন। তার পরিবারের সদস্যরা ব্যাংক, বীমা এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের সাথে জড়িত। তিনি বেশ কয়েকটি অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য এবং বিভিন্ন সামাজিক সংস্থার সাথে যুক্ত রয়েছেন যার মাধ্যমে তিনি মানুষের কল্যাণের জন্য অত্যন্ত নীরবে কাজ করছেন।

অপরদিকে সাউথইস্ট ব্যাংক লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদের ভাইস চেয়ারপার্সন হিসেবে পুনঃনির্বাচিত হওয়া মিসেস দুলুমা আহমেদ ১৯৪৭ সালের ৭ জুলাই জন্মগ্রহণ করেন। তিনি একজন অত্যন্ত সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারের সন্তান। তিনি ব্যাংকের একজন উদ্যোক্তা পরিচালক। মিসেস দুলুমা আহমেদ ২০১৭ সালের ২২ মে থেকে ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের ভাইস চেয়ারপার্সন হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের নির্বাহী কমিটিরও সদস্য। তিনি ব্যবসায়িক বিভিন্ন কার্যক্রমের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন। তিনি মিউচুয়াল ফুড প্রোডাক্টস লিমিটেড এবং মিউচুয়াল মিল্ক প্রোডাক্টস লিমিটেডের চেয়ারম্যান এবং মিউচুয়াল ট্রেডিং কোম্পানি লিমিটেডের পরিচালক। তিনি মিউচুয়াল ডিস্ট্রিবিউশন এবং সিলোনিয়া এজেন্সি এবং মিউচুয়াল লজিস্টিক সার্ভিস লিমিটেডের অংশীদার। মিসেস দুলুমা আহমেদ ডানো ব্র্যান্ড মিল্ক প্রোডাক্টস উৎপাদনের জন্য মিউচুয়াল মিল্ক প্রোডাক্টস এবং ডেনমার্কের আরলা ফুডসের যৌথ উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত আরলা ফুডস বাংলাদেশ লিমিটেডেরও একজন সম্মানিত পরিচালক।

মিসেস দুলুমা আহমেদ শিক্ষাবিদ ও সমাজসেবী পরিবারের সদস্য হওয়ায় ফেনী এলাকার অন্যতম শীর্ষ বিদ্যালয় বাথানিয়া দুলুমা আজিম উচ্চ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার প্রধান সংগঠক। তিনি এলাকার অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্যও অবদান রাখছেন।

মিসেস দুলুমা আহমেদ দেশের বেশ কিছু সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে জড়িত। তিনি বিখ্যাত সাংস্কৃতিক সংগঠন বেনুকা ললিতকলা একাডেমির পৃষ্ঠপোষক। তিনি ইনার হুইল ক্লাবের সদস্য এবং ইনার হুইল ক্লাব ঢাকা উত্তরের সেক্রেটারি এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি মানবতার সেবায় ব্রত দেশের একটি বিখ্যাত সামাজিক মহিলা ক্লাব গুলশান লেডিস ক্লাবের সদস্য। তিনি দেশের শীর্ষস্থানীয় সামাজিক ক্লাব গুলশান ক্লাব লিমিটেডেরও সদস্য। একজন সমাজকর্মী হিসাবে তিনি উদারভাবে সমাজের দরিদ্র এবং অভাবী অংশে অবদান রাখছেন।

 

অর্থসূচক/এএইচআর

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •