অস্ট্রেলিয়ায় খবর দেখা ও শেয়ার করা বন্ধ করল ফেসবুক

অস্ট্রেলিয়ার ব্যবহারকারীদের নিউজ কন্টেন্ট শেয়ার ও দেখার সুযোগ ব্লক করে দিয়েছে ফেসবুক। এতে তথ্য পাওয়ার ক্ষেত্রে জনগণের প্রবেশাধিকারকে বাধাগ্রস্ত করা হয়েছে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন অনেকে।

আজ বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার সকালে ঘুম ভেঙে অস্ট্রেলিয়ার বাসিন্দারা আবিষ্কার করেন, তাদের নিউজ ফিডে কোন সংবাদ কনটেন্ট নেই। স্থানীয় বা আন্তর্জাতিক কোনো সংবাদমাধ্যমের ফেসবুক পেজও তারা দেখতে পারছেন না। এছাড়া অস্ট্রেলিয়ার কয়েকটি সরকারি সংস্থার পেজও ছিলো না। যদিও তা ভুলবশত বন্ধ করা হয়েছিল জানিয়ে ফেসবুক তা আবার চালু করে।

অস্ট্রেলিয়া সরকারের এক প্রস্তাবিত আইনের কারণেই এই পদক্ষেপ নিয়েছে ফেসবুক। ওই আইনে নিউজ কন্টেন্টের কারণে ফেসবুককে মূল্য পরিশোধ করতে বলা হয়েছে। তবে ফেসবুক ও গুগলের মতো কোম্পানিগুলো বলছে, ইন্টারনেট যেভাবে কাজ করে তা এই আইনে প্রতিফলিত হয়নি, আর অন্যায্যভাবে তাদের জরিমানা করা হচ্ছে।

বুধবার অস্ট্রেলিয়ার পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষে প্রস্তাবিত আইনটি অনুমোদিত হয়। দেশটির সরকার বলছে তারা আইন অনুযায়ী অগ্রসর হবে। যোগাযোগ মন্ত্রী পল ফ্লেচার ফেসবুককে সতর্কভাবে সবকিছু চিন্তা করতে তাগিদ দিয়েছেন।

ফেসবুক অস্ট্রেলিয়ায় নিউজ কন্টেন্ট ব্লক করে দেওয়ার কয়েক ঘণ্টা আগে রুপার্ট মারডকের নিউজ কর্পোরেশনগুলোর সাইট থেকে শেয়ার করা নিউজের মূল্য পরিশোধে সম্মত হয়েছে গুগল।

অস্ট্রেলিয়ার প্রতিযোগিতা নিয়ন্ত্রকেরা বলছেন, টেক জায়ান্টস এবং প্রকাশকদের মধ্যে লাভ ভাগাভাগিতে ‘লেবেল প্লেয়িং ফিল্ড’ তৈরি করতেই তারা নতুন আইনের প্রস্তাব করেছেন। তবে ফেসবুক বলছে, ওই আইনটি তাদের সামনে দুইটি সুযোগ থেকে একটি বেছে নেওয়ার পরিস্থিতি তৈরি করেছে- হয় এই সম্পর্কের বাস্তবতাস অস্বীকার করা আইনটি মেনে নেওয়া, অন্যথায় অস্ট্রেলিয়ায় আমাদের সেবায় নিউজ কন্টেন্ট অনুমোদন বন্ধ করে দেওয়া। এক ব্লগ পোস্টে ফেসবুক বলেছে, ‘আমরা ভগ্ন হৃদয়ে পরেরটাই বেছে নিয়েছি।’

অস্ট্রেলিয়ার প্রকাশকেরাও নিজেদের ফেসবুক পেজ-এ কোনও নিউজ লিংক শেয়ার করতে পারছেন না। দ্য ন্যাশনাল ব্রডকাস্টার, এবিসি এবং সিডনি মর্নিং হেরাল্ড ও দ্য অস্ট্রেলিয়ান-এর মতো সংবাদমাধ্যমগুলোর লাখ লাখ ফেসবুক অনুসারী রয়েছে।

ফেসবুক বলছে, গত বছর তাদের প্লাটফর্মে নিউজ লিংক শেয়ার করার মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়ার প্রকাশকেরা প্রায় ৪০ কোটি ৭০ লাখ ডলার আয় করার সুযোগ পেয়েছেন। কিন্তু এই আয় থেকে ফেসবুকের আয়ের পরিমাণ খুবই নগন্য।

অর্থসূচক/কেএসআর

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •